ক্রসফায়ারের সাথে আওয়ামীলীগ জড়িত তার সরাসরি স্বীকারোক্তি। এইজন্য দলের শীর্ষ নেত্রীও ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন।

মনোনয়ন পেতে নানা কৌশল আওয়ামী লীগে
আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন পেতে এখন থেকেই দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন সাভার-১৯ আসনের আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। তিনটি গ্রুপে বিভক্ত এখানকার আওয়ামী লীগ। একটি গ্রুপে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বর্তমান এমপি ডা. এনামুর রহমান। অপর দুটি গ্রুপের নেতৃত্বে আছেন সাবেক এমপি মুরাদ জং ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হাসান তুহিন। তবে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন এনামুর রহমান ও মুরাদ জং।
মুরাদ জং হচ্ছেন রানা প্লাজার সেই কুখ্যাত খুনি রানা। যার জন্য কয়েক হাজার পোশাক শ্রমিক এখনো পঙ্গু , নিখোঁজ , কতজন নিহত হয়েছেন তা অজানা। এমনকি এর পর সেই রেশমা নাটক।
৫ জনকে ক্রসফায়ার দিয়েছি, ১৪ জনের লিস্ট করেছি: ডা. এনামুর রহমান

এদিকে সাভারের বর্তমান এমপি ডা. এনামুর রহমান নির্বাচনী এলাকার সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে মোবাইল ফোনে মানবজমিনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, সাভারে অনেক ক্যাডার আর মাস্তান ছিল।

এখন সব পানি হয়ে গেছে। কারও টুঁ শব্দ করার সাহস নেই। ৫ জনকে ক্রসফায়ারে দিয়েছি আরো ১৪ জনের লিস্ট করেছি। সব ঠাণ্ডা। লিস্ট করার পর যে দু’একজন ছিল তারা আমার পা ধরে বলেছে, আমাকে জানে মাইরেন না আমরা ভালো হয়ে যাবো। (ডা. এনামুর রহমানের বক্তব্যের রেকর্ড রয়েছে আমাদের কাছে।)

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.