রাজন হত্যাকান্ড ও কিছু কথা

রানা প্লাজা, সাগর-রুনি, বিশ্বজিৎ, থাবাবাবা, টিএসসির ইভটিজারদের মত রাজন আরেকটি ফেসবুক ইস্যু। প্রতিটা ইস্যুর মেয়াদ থাকে সর্বসাকুল্যে ১৫ দিন।
কেউ প্রোফাইল পিকচার দিয়ে রাজনের হত্যার বিচার চাচ্ছেন।
অনেকেই রাজনকে নিয়ে কবিতা লিখেছেন, কেউ কেউ রাজনৈতিক অভিসন্ধি খুজছেন। মোটামুটি সবাই হত্যাকারিদের ফাঁসি চাচ্ছেন।
কিন্তু আমাদের দেশে স্কুল ও মাদ্রাসাগুলিতে প্রতিনিয়ত কত শিশু নির্যাতন হয় তার খবর কি আমরা রাখি?
অভিভাবকরা দুষ্টু ছেলেদের স্কুল ও মাদ্রাসাতে দিয়ে টিচারদের বলে, “স্যার, মাংস আপনার, খালি হাড্ডিগুলা আমাদের”। নিজেরাই শিশুদের নির্যাতন করতে উৎসাহিত করি।
রাজনকে নিয়ে এত মাতামাতি হত না, যদি না রাজন মারা যেত, আর তার ভিডিও বের হত। প্রতিদিন কত রাজন যে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে তার বিচার কি আমরা চাই?
অন্য সব হত্যাকান্ডের মত এর বিচার হবে কিনা জানিনা, তবে শুধু ফেসবুকে ফাঁসি চেয়ে, কান্নাকাটি না করে নিজের সমাজকে বদলে দেয়ার চেষ্টা করাটাই মনে হয় ভাল।
নিজের ঘর থেকেই না হয় শুরু হোক!
#StopChildAbuse