আওয়ামীলীগ কি জাতির কাছে কাছে ক্ষমা চেয়েছে ??

কেয়ারটেকার সরকার নাকি সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক !! মানে আদালতের রায় মতে এটা অসাংবিধানিক ।
তাহলে এ অসাংবিধানিক দাবীর জন্য দিনের পর দিন হরতাল অবরোধ দিয়ে ব্যাপক জান-মালের ক্ষতি যারা করেছিল, তারা কি কখন তাদের ভুলের জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন ??
আওয়ামীলীগের লোকজনকে আমার কাছে অনেকটা ভেড়ার পালের মত মনে হয় ! গতকাল তাদের কাছে কেয়ারটেকার মানে ছিল জনগনের ভোটাধিকার !! আর আন্দোলন ছিল গনতান্ত্রিক অধিকার !! তখন লীগের সবার সুরেই ছিল একি কথা !! । আর আজকে তাদের পোষ্য জাস্টিস মতে কেয়ারটেকার অসাংবিধানিক !! একি সাথে সবার (তা সে নেত্রী বলি আর কুলি-শ্রমিক লীগ বলি) সুরেই একি গীত, মানে কেয়ারটেকার গনতন্ত্র বিরোধী !! আবার এমন যদি হয় – কালকে নেত্রী আবার কেয়ারটেকারকে ঠিক বললে সাথে সাথে টপ টু বটম রিমিক্স করে সেই পুরোনো সুরেই গান গাইবে !!
আমার ধারনা আওয়ামীলীগের লোকজন মানুষের দ্বারে-দ্বারে গিয়ে তৎকালীন কেয়ারটেকার আন্দোলনের জন্য ক্ষমা চেয়ে তারপর বিধানটি সংবিধান থেকে বাতিল করলে হয়ত আজকের এ পরিস্হিতির উদয় হতনা !!!